সবকিছুর জন্য ধন্যবাদ- স্বপ্নের প্রত্যাবর্তনের পর জীবনের মন্ত্র দিলেন ঋষভ পন্ত

সবকিছুর জন্য ধন্যবাদ- স্বপ্নের প্রত্যাবর্তনের পর জীবনের মন্ত্র দিলেন ঋষভ পন্ত

ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনা থেকে প্রাণে বেঁচেছেন। লড়াই করে ফিরেছেন ২২ গজে। আর জীবনযুদ্ধে জেতার পর, এবার ক্রিকেট মাঠেও জয়ধ্বজা ওড়ালেন ঋষভ পন্ত। জোড়া হারের ধাক্কা কাটিয়ে চেন্নাই সুপার কিংসকে হারাল দিল্লি ক্যাপিটালস। রবিবার ভাইজ্যাগে আইপিএল জয়ীদের বিরুদ্ধে ২০ রানে জেতে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, রিকি পন্টিংয়ের দল। ঋষভ পন্ত রানে ফিরতেই, জয়ে ফিরল দিল্লিও। চলতি আইপিএলে এটাই ডিসি-র প্রথম জয়।

তবে ২২ গজে প্রত্যাবর্তনটা মোটেও সুখের হয়নি ঋষভ পন্তের। এবার আইপিএলের হাত ধরে ক্রিকেটে ফিরলেও, প্রথম দুই ম্যাচে তিনি নিরাশই করেছেন। সেই সঙ্গে তাঁর দলও সেই দুই ম্যাচেই হেরে বসে ছিল। কিন্তু পন্ত যাঁকে ‘গুরু’ বলে মানেন, সেই মহেন্দ্র সিং ধোনির দলের বিরুদ্ধেই অবশেষে জ্বলে ওঠেন দিল্লি ক্যাপিটালসের অধিনায়ক। তৃতীয় ম্যাচেই বুঝিয়ে দিলেন যে, তিনি এখনও আগের মতোই সাবলীল রয়েছেন। এদিন পন্ত দুরন্ত হাফসেঞ্চুরি হাঁকান। তাঁর ইনিংস দিল্লির জয়ের ভিত গড়ে দেয়।

তিনে ব্যাট করতে নেমেছিলেন পন্ত। দিল্লি ক্যাপিটালস ২ উইকেট হারানোর পর হাল ধরেন তিনি। ৩২ বলে ৫১ রানের ঝকঝকে একটি ইনিংস খেলেন। দুর্ঘটনা থেকে ২২ গজে ফেরার পর এটাই প্রথম হাফসেঞ্চুরি পন্তের। এদিন তিনটি ছক্কা এবং ৪টি চার হাঁকিয়েছেন পন্ত। শেষ পর্যন্ত পাথিরানার বলে রুতুরাজ গায়কোয়াড়কে ক্যাচ দেন তিনি। তাঁর হাত ধরেই দিল্লি শেষ পর্যন্ত নির্দিষ্ট ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৯১ রান করে। এবং শেষ পর্যন্ত তারা ২০ রানে ম্যাচটি জিতে যায়। দিল্লি অবশ্য নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে পঞ্জাব এবং রাজস্থানের কাছে হারের পর সিএসকে-র বিরুদ্ধে আইপিএলে তাদের খাতা খোলে। স্বভাবতই এই ম্যাচে পন্তের ইনিংস বৃথা যায়নি।

ম্যাচের পর পন্ত নিজের এক্স হ্যান্ডলে একটি মেসেজ শেয়ার করেছেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘প্রতিদিন মাঠে পা রাখলেই, আমি অদ্ভূত আনন্দ পাই। এবং সব সময়ে এটা করতে পারাটা আমার কাছে একটি দারুণ বিষয় বলেই মনে হয়। এর জন্য সব সময়ে আমি কৃতজ্ঞও থাকি। তবে কোনও কিছুকেই টেকেন ফর গ্রান্টেট হিসেবে ধরে নিই না। সব মিলিয়েই দারুণ দলীয় প্রচেষ্টা ছিল এদিন। তবে এখন মাথা নীচু করেই নিজেদের লক্ষ্যে এগিয়ে যাওয়ার জন্য নিজেদের কাজটা করে যেতে হবে।’

সিএসকে-কে হারানোর পর স্বাভাবিক ভাবেই উচ্ছ্বসিত গোটা দিল্লি টিম। আর দলের প্রথম জয়ের পর পন্ত বলেছেন, দুর্ঘটনার পর থেকে তিনি যা করেছেন, তার পরে আত্মবিশ্বাস ধরে রাখাটা তাঁর জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ম্যাচ পরবর্তী উপস্থাপনা অনুষ্ঠানে ডিসি অধিনায়ক বলেছেন, ‘একজন ক্রিকেটার হিসেবে আমাকে আমার একশো শতাংশ দিতে হবে। শুরুতে কিছুটা সময় লেগেছে। কারণ আমি গত দেড় বছরে বেশি ক্রিকেট খেলিনি। এটি এমন কিছু যার উপর আমার জীবন নির্ভর করেছিল। সব সময়ে আত্মবিশ্বাসী ছিলাম যে, যাই ঘটুক না কেন, ২২ গজে ফিরে আসাটা গুরুত্বপূর্ণ।’দিল্লির পরবর্তী ম্যাচ শ্রেয়স আইয়ারের কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে বুধবার, ৩ এপ্রিল। সেই ম্যাচটিও বিশাখাপত্তনমে অনুষ্ঠিত হবে। দিল্লি ক্যাপিটালসের বর্তমানে ৩ ম্যাচে ২ পয়েন্ট। তাদের নেটরানরেট -০.০১৬। তারা পয়েন্ট টেবলের সপ্তম স্থানে রয়েছে।

Sports