সঞ্জয় সিংয়ের জামিনে উল্লসিত আপ

সঞ্জয় সিংয়ের জামিনে উল্লসিত আপ

 দিল্লির আবগারি মামলায় জামিন পেয়েছেন আপ নেতা সঞ্জয় সিং। সুপ্রিম কোর্ট তাঁর জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেছে। আর এই ঘটনাটে সত্যের জয় বলে উল্লেখ করেছেন আপ নেতৃত্ব। আপ এক্স হ্যান্ডেলে লিখেছে, সত্য়ের জয় হয়েছে। সেই দিন আর বেশি দূরে নেই। এবার আপের বিরুদ্ধে বিজেপি যে ষড়যন্ত্র করেছিল তা প্রকাশ্য়ে আসবে। 

মঙ্গলবার বিকালে আপের সদর দফতরে একটা সাংবাদিক বৈঠক হয়। সেখানে আপের তরফে একাধিক নেতা নেত্রীরা ছিলেন। আপ মন্ত্রী অতিশী জানিয়েছেন, এটা প্রমাণিত যে সত্য প্রকাশিত হবেই। গত দু বছর ধরে একের পর এক আপ নেতা নেত্রীদের সাজানো মামলায় জেলে ভরে ফেলা হয়েছে। কিন্তু সঞ্জয় সিংয়ের জামিন এটা প্রমাণ করল যে সত্য়ের জয় হবেই। দু বছর ধরে তদন্ত চলছে। কিন্তু আপ নেতাদের কাছ থেকে কোনও টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়নি। 

আপ মন্ত্রী সৌরভ ভরদ্বাজ জানিয়েছেন, সঞ্জয় সিংয়ের জামিন এটা প্রমাণ করে যে আজ গণতন্ত্রের একটা বড় দিন। আপ নেত্রী জেসমিন শাহ জানিয়েছেন, শীঘ্রই এই মিথ্যা ষড়যন্ত্র একদিন ভেঙে পড়বে। 

আপ মুখপাত্র প্রিয়াঙ্কা কক্কর জানিয়েছেন, প্রথম থেকে আমরা বলে আসছিলাম যে এই মামলা পুরোটাই ভুয়ো। এটা বিজেপি অফিসে বসে লেখা হয়েছিল। ৫০০ অভিযান চালানোর পরেও কিছু পাওয়া যায়নি। 

এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) জামিনের আবেদনের বিরোধিতা না করায় মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট দিল্লির আবগারি নীতি মামলায় আপ নেতা সঞ্জয় সিংকে জামিন দিয়েছে। এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট জানিয়েছে, আপ নেতা সঞ্জয় সিংকে এই মামলায় জামিন দেওয়া হলে তাদের কোনও আপত্তি নেই।

এর মধ্য দিয়ে সঞ্জয় সিং হলেন প্রথম প্রবীণ আপ নেতা যিনি এখন বাতিল হওয়া মদ নীতির সাথে যুক্ত আর্থিক তছরুপের মামলায় নিয়মিত জামিন পেয়েছেন। একই মামলায় দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া এবং প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈনকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

 বিচারপতি সঞ্জীব খান্না, দীপঙ্কর দত্ত এবং বিচারপতি পি বি ভারালেকে নিয়ে গঠিত তিন বিচারপতির বেঞ্চ জানিয়েছে, তদন্তকারী সংস্থার তরফে যে ছাড় দেওয়া হয়েছে, তা নজির হিসেবে উল্লেখ করা যাবে না। ছয় মাস জেলে থাকা সঞ্জয় সিংকে জামিনে থাকাকালীন এই মামলা নিয়ে কোনও মন্তব্য না করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

শীর্ষ আদালতের রায়ের প্রতিক্রিয়ায় প্রবীণ আপ নেতা এক্স-এ একটি সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে ‘সত্যমেব জয়তে’ বলেছেন।

শুনানি চলাকালীন বেঞ্চ ইডির পক্ষে উপস্থিত অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল এস ভি রাজুকে জানায় যে সিং-এর কাছ থেকে কোনও টাকা উদ্ধার করা হয়নি এবং তাঁর বিরুদ্ধে ২ কোটি টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ বিচারে পরীক্ষা করা যেতে পারে।

India Politics