মোদীকে নিয়ে বড় দাবি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযুষ গোয়েলের

মোদীকে নিয়ে বড় দাবি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযুষ গোয়েলের

বিশ্ব জুড়ে যেসব দেশ দূষণের জন্য দায়ী, তাদের থেকে তালিকায় অনেকটাই পিছনে অন্য দেশ। অথচ সেই দেশগুলির উপরেই প্রভাব সবচেয়ে বেশি পড়ছে দূষণের। সম্প্রতি এমনটাই বললেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট। ভারতও ভুগছে একই সমস্যায়। জো বাইডেনের এই কথায় সংবাদমাধ্যম এএনআই-কে জানালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযুষ গোয়েল। এশিয়া প্যাসিফিক ইকোনমিক কোঅপারেশনের বিশেষ বৈঠকের প্রথম দিন ছিল বৃহস্পতিবার। বৈঠকের প্রথম দিনেই দেখা হয় পীযুষ গোয়েল ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের। সেই সাক্ষাতেই তিনি এই কথা বলেন।

এই দিন এই নিয়ে নিজের এক্স প্রোফাইলেও একটি পোস্ট করেন তিনি। আমেরিকার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করে তিনি সম্মানিত। এমনটাই লেখেন তাঁর পোস্টে। সানফ্রান্সিসকোতে এই বৈঠক আয়োজিত হয়েছিল। তারও উল্লেখ ছিল পোস্টে।

সংবাদমাধ্যম এএনআই-কে পীযুষ গোয়েল বলেন, জো বাইডেন দেখা হতেই নরেন্দ্র মোদীকে অভিবাদন জানিয়েছেন। একই সঙ্গে পরিবেশ দূষণের সমস্যা নিয়েও মুখ খোলেন তিনি। পীযুষ গোয়েলের কথায়, তিনি স্বীকার করে নিয়েছে বর্তমান সংকটের কথা। বিশ্ব জুড়ে যেসব দেশ দূষণের জন্য দায়ী, তাদের থেকে তালিকায় অনেকটাই পিছনে অন্য দেশ। অথচ সেই দেশগুলির উপরেই প্রভাব সবচেয়ে বেশি পড়ছে দূষণের। এই কথা স্বীকার করে নেন আমেরিকান প্রেসিডেন্ট। 

বাইডেনের এই কথাকে ‘বড়’ বার্তা হিসেবেই দেখছেন পীযুষ। তাঁর কথায়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বরাবর এই কথা বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মঞ্চে বলছেন বহুদিন ধরে। ভারতের মুখপাত্ররাও আন্তর্জাতিক স্তরে এই নিয়ে কথা বলেছেন। এবার সেই কথাকেই স্বীকৃতি জানালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

পীযুষের কথায়, প্রধানমন্ত্রী বহুবার দূষণের বিরুদ্ধে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মঞ্চে কথা বলেছেন। পরিবেশের ক্ষতি নিয়ে সচেতনতা প্রচার করেছেন। স্বচ্ছ ভারত তাঁর অন্যতম বিখ্যাত প্রকল্প। এই দিন একটি তহবিলের কথাও ঘোষণা করেন পীযুষ গোয়েল। ওই তহবিলটি দুই দেশের যৌথ তহবিল হবে। দুই দেশই ওই তহবিলে বিনিয়োগ করবে বলে জানান তিনি। আগামী দিনে দুই দেশ জুড়ে বিনিয়োগের সুযোগ আরও বাড়াতেই এই সিদ্ধান্ত।

India Politics World