নিজের উদ্ভাবিত পদ্ধতিতেই ক্যানসারমুক্ত হলেন চিকিৎসক

নিজের উদ্ভাবিত পদ্ধতিতেই ক্যানসারমুক্ত হলেন চিকিৎসক

মস্তিষ্কের ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছিলেন রিচার্ড স্কোলিয়ার নামে অস্ট্রেলীয় একজন চিকিৎসক। বলা হয়, এই ক্যানসারে আক্রান্ত হলে রোগীর আয়ু এক বছরেরও কম থাকে। কিন্তু নিজের উদ্ভাবিত পদ্ধতিতে চিকিৎসা নিয়েই মস্তিষ্ক ক্যানসার থেকে মুক্তি পেয়েছেন রিচার্ড।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন রোগতত্ত্ববিদ অধ্যাপক রিচার্ড স্কোলিয়ার ‘গ্লায়োব্লাস্টোমার’ নামের এক মারাত্মক ক্যানসারে আক্রান্ত ছিলেন। পরে তিনি নিজের গবেষণায় উদ্ভাবিত এক বিশেষ থেরাপি পরীক্ষামূলকভাবে নিজের শরীরে ব্যবহার করেন। এরপর এক বছরের বেশি সময় ধরে ক্যানসারমুক্ত আছেন বলে দাবি তার।  মঙ্গলবার (১৪ মে) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে (সাবেক টুইটার) এক পোস্টে রিচার্ড লেখেন, ‘এমআরআই পরীক্ষায় এবার তার মস্তিষ্কে নতুন কোনো টিউমার দেখা যায়নি।’ 

তিনি বিবিসিকে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘এবারের এমআরআই পরীক্ষার সময় আমি আগেরবারের তুলনায় বেশি ভয় পাচ্ছিলাম। আমার এখন অনেক খুশি লাগছে।’ মেলানোমা ইনস্টিটিউট অস্ট্রেলিয়াতে অধ্যাপক রিচার্ড স্কোলিয়ার এবং অধ্যাপক জর্জিনা লং গবেষণা করে দেখেছেন, কয়েকটি ওষুধের সংমিশ্রণে তৈরি ইমিউনোথেরাপি আগের তুলনায় বেশ ভালো কাজ করছে। ইমিউনোথেরাপি পদ্ধতিতে শরীরের ইমিউন সিস্টেম বা রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে ব্যবহার করে ক্যানসার আক্রান্ত কোষকে আক্রমণ করা হয়।  

গত বছর স্কোলিয়ারকে পরীক্ষামূলকভাবে এ থেরাপি দেয়া হয়েছিল। যার সুফল পেয়েছেন তিনি। এর জন্য স্কোলিয়ার এবং লংকে ‘অস্ট্রেলিয়ান অব দ্য ইয়ার’ সম্মাননা দেয়া হয়েছে।

World