দিল্লির পাঁচতারা হোটেলে ‘ধর্ষণ!’ অভিযুক্ত বাংলার রাজ্যপাল

দিল্লির পাঁচতারা হোটেলে ‘ধর্ষণ!’ অভিযুক্ত বাংলার রাজ্যপাল

বাংলার রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস। সেই রাজ্যপালের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ। বিবাহ বিচ্ছেদ সংক্রান্ত মামলায় সহায়তার আশ্বাস দিয়ে নৃত্যশিল্পীকে ধর্ষণের অভিযোগ। নয়া দিল্লির একটি হোটেলে তাঁকে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। 

এদিকে সেই অভিযোগকে কেন্দ্র করে এবার বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে তরজা তুঙ্গে উঠেছে। তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষ জানিয়েছেন, কোনও একজন বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী, একজন অত্যন্ত গুণী মহিলা, তিনি গুরুতর অভিযোগ করেছিলেন। সেই রিপোর্টটি প্রশাসনিকভাবে পাঠানো হয়েছে। এনিয়ে বিশদে কিছু বলতে পারব না। কিন্তু বার বার একই ধরনের অভিযোগ আসছে তা উদ্বেগের। 

এদিকে এনিয়ে মুখ খুলেছেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেন, আমি এটা নিয়ে কিছু বলব না। রাজভবন এর সাফাই দেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট। নির্বাচনের সময় ইস্যু নেই, মমতা যেখানে যাচ্ছেন গালি শুনছেন, তাই নির্বাচনে জেতার জন্য রাজ্যপাল ও সন্দেশখালি নিয়ে নোংরামি করছে তৃণমূল। 

এদিকে তৃণমূল অবশ্য গোটা ইস্যুকে কেন্দ্র করে বড় আন্দোলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। তৃণমূলের শিক্ষাসেল এনিয়ে রাজভবন অভিযানের ডাক দিয়েছে। রাজ্যপালের পদ থেকে সিভি আনন্দ বোসের পদত্যাগের দাবিও করছে তৃণমূল। 

এদিকে সূত্রের খবর, সেই পাঁচতারা হোটেলের রুমও বুক করে দিয়েছিলেন রাজ্যপালের এক আত্মীয়। সেবার বঙ্গভবনে উঠেছিলেন রাজ্যপাল। তারপর সেখান থেকে রক্ষী ছাড়়াই তিনি চলে যান ওই হোটেলে। সেখানেই ওই নৃত্যশিল্পীকে ধর্ষণ করেন বলে অভিযোগ। নবান্নে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছিলেন ওই শিল্পী। এরপর সেই অভিযোগ পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল লালবাজারে। পুলিশ কমিশনারের নির্দেশে ডিসি পদমর্যাদার এক অফিসার এনিয়ে প্রাথমিকভাবে খোঁজখবর নেন। এমনকী যিনি অভিযোগ করেছিলেন তাঁর বয়ানও রেকর্ড করা হয়েছিল। অভিযোগের সত্যতা কতটা রয়েছে সেটাও যাচাই করা হয়েছিল। এরপর পুলিশ কমিশনার নবান্নে রিপোর্ট জমা দেন। 

তবে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে এই ধরনের অভিযোগকে কেন্দ্র করে নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। এর আগে রাজভবনের মধ্য়ে এক মহিলা কর্মীকে শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ উঠেছিল রাজ্যপালের বিরুদ্ধে। এনিয়ে সিসি ক্যামেরার ফুটেজও সামনে এনে সত্যের মুখোমুখি হওয়ার চেষ্টা করেছিলেন রাজ্যপাল। কিন্তু সেই ফুটেজ আদৌ কতটা সত্যকে সামনে এনেছে সেই প্রশ্নটা থেকেই গিয়েছে। সেই ক্ষত শুকিয়ে যাওয়ার আগেই এবার সামনে এল ধর্ষণের অভিযোগ। সেটা আবার গত বছর হয়েছিল বলে দাবি করা হচ্ছে। 

Politics West Bengal