দার্জিলিংয়ে ১০ লক্ষ নগদ টাকা-সহ গ্রেফতার রাজু বিস্তা ঘনিষ্ঠ BJP নেতা

দার্জিলিংয়ে ১০ লক্ষ নগদ টাকা-সহ গ্রেফতার রাজু বিস্তা ঘনিষ্ঠ BJP নেতা

জলপাইগুড়ি, শিলিগুড়ির পর এবার দার্জিলিং। আগামীকাল দ্বিতীয় দফার ভোট রয়েছে পাহাড়ে। তার আগে দার্জিলিংয়ে এক বিজেপি নেতার কাছ থেকে উদ্ধার হল প্রায় ১০ লক্ষ টাকা। বিজেপি নেতার গাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে এই পরিমাণ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনায় বিজেপি নেতাকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। জানা গিয়েছে, ওই বিজেপি নেতার নাম অরুণ প্রধান। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। তৃণমূল সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছে, ‘এবার বিজেপির বিসর্জন অনিবার্য।’

জানা গিয়েছে, বিজনবাড়ির পারাবুং বস্তিতে নাকা তল্লাশির সময় অরুণ প্রধানের ব্যক্তিগত গাড়িতে তল্লাশি চালায় পুলিশ। সেই গাড়ি থেকেই এই পরিমাণ নগদ টাকা উদ্ধার হয়। তবে কোথা থেকে এই টাকা নিয়ে আসা হচ্ছিল বা কার টাকা অথবা কী কারণে এই টাকা নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল সে সম্পর্কিত কোনও নথি দেখাতে পারেননি বিজেপি নেতা। তাই তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এখন যেহেতু নির্বাচনী বিধি জারি রয়েছে তাই ওই বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রের খবর, অরুণ প্রধান সুম্বুকের বাসিন্দা। তিনি রিম্বিক এলাকার একটি স্কুলের শিক্ষক। পাহাড়ের একাধিক বিজেপি নেতার সঙ্গে তাঁকে বিভিন্ন সময়ে দেখা গিয়েছে। শুধু তাই নয়, শোনা যাচ্ছে অরুণ প্রধান দার্জিলিংয়ের বিজেপি প্রার্থী রাজু বিস্তার ঘনিষ্ঠ। এই অবস্থায় ভোটের ঠিক দুদিন আগে টাকা উদ্ধারের ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই অস্বস্তিতে বিজেপি। যদিও এই ঘটনায় বিজেপির কোনও প্রতিক্রিয়া এখনও পাওয়া যায়নি।

ভোটের ঠিক আগেই বিজেপি নেতার কাছ থেকে টাকা উদ্ধারের ঘটনাকে হাতিয়ার করতে দেরি করেনি তৃণমূল কংগ্রেস। এবিষয়ে এক্স হ্যান্ডেল পস্তে তৃণমূল কংগ্রেস লিখেছে, ‘দার্জিলিং হেরে যাওয়ার ভয় পাচ্ছে বিজেপি। তাদের নেতা, অরুণ প্রধানের কাছ থেকে নগদ ১০ লক্ষ টাকা উদ্ধার হয়েছে। বিজেপি নেতা টাকা সহ পুলিশের হাতে ধরা পড়েছেন। কিন্তু, জনগণকে কেনা যাবে না। বিজেপির বিসর্জন অনিবার্য!’

প্রসঙ্গত, বিজেপি নেতাদের কাছ থেকে একের পর এক টাকা উদ্ধারের ঘটনায় ভোট কেনার অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই অবস্থায় কোথা থেকে এল ওই বিপুল পরিমাণ টাকা তিনি পেলেন? কোন কাজের জন্য টাকা নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল? এই সবের উত্তর পেতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

West Bengal