গাজায় ইসরাইলি হামলায় জাতিসংঘের ভারতীয় কর্মী নিহত

গাজায় ইসরাইলি হামলায় জাতিসংঘের ভারতীয় কর্মী নিহত

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় জাতিসংঘের গাড়িবহরে হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। এতে সংস্থাটির ভারতীয় বংশোদ্ভূত এক নিরাপত্তাকর্মী নিহত হয়েছেন। এছাড়া আরব বংশোদ্ভূত এক নিরাপত্তাকর্মী আহত হয়েছেন।

জাতিসংঘ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত সোমবার (১৩ মে) গাজায় জাতিসংঘের একটি গাড়িবহরে হামলা চালানো হয়। ইসরাইলি একটি ট্যাঙ্ক থেকে ছোড়া গোলা স্পষ্টভাবে চিহ্ণিত একটি গাড়িতে আঘাত হানে। এতে কর্নেল বৈভব অনীল কালে নামে ভারতীয় নিরাপত্তা কর্মকর্তা নিহত হন। অনীল কালে ভারতীয় সেনাবাহিনীর একজন সাবেক কর্মকর্তা। গাজায় সংঘাত শুরুর পর তিনিই জাতিসংঘের প্রথম নিহত আন্তর্জাতিক কর্মী।  বুধবার (১৫ মে) হামলার বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য দিয়ে জাতিসংঘের সহকারী মুখপাত্র ফারহান হক বলেন, কোনো সন্দেহ নেই যে ইসরাইলি ট্যাঙ্ক থেকে ছোঁড়া একটি গোলা জাতিসংঘ লেখা গাড়িটিতে আঘাত করে। ফারহান হক জানান, কেন এই আক্রমণ চালানো হয়েছে তা ইসরাইলি কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে চায়া হয়েছে। এ ঘটনায় জাতিসংঘের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা বিভাগ একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বলেও জানান তিনি।

 জাতিসংঘ আগে জানিয়েছিল, রাফাহ শহরের ইউরোপীয় হাসপাতালে যাওয়ার সময় তাদের কর্মীদের বহন করা একটি গাড়ি আটকে যায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত ঘটনার ভিডিও যাচাই করে বিবিসি বলেছে, গাড়িটিতে পরিস্কারভাবে জাতিসংঘের লোগো চিহ্ণিত ছিল। এটিতে অনেকগুলো গুলির চিহ্ণও পাওয়া গেছে। ইসরাইলি সামরিক বাহিনী (আইডিএফ) বলেছে, তাদের প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে গাড়িটি একটি সংঘাতপূর্ণ এলাকায় আটকে যায় এবং এটির রুট সম্বন্ধে আগে থেকে কোনো তথ্য তাদের দেয়া হয়নি। তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। নিহত কর্নেল কালের বাড়ি ভারতের মহারাষ্ট্রে। ভারতীয় সেনাবাহিনীতে ২২ বছর চাকরির পর স্বেচ্ছা অবসরে যান তিনি। গাজায় ইসরাইল আগ্রাসন শুরুর কয়েক সপ্তাহ আগে তিনি ইউএনডিএসএস-এ চাকরি শুরু করেন।

 অনীল কালের মৃত্যুতে জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তনিও গুতেরেস শোক জানিয়েছেন। এক বিবৃতিতে গুতেরেস বলেছেন, গাজায় সংঘাত শুরুর পর জাতিসংঘের ১৯০ কর্মী নিহত হয়েছে।  গত এপ্রিলে বিমান হামলা চালিয়ে ওয়ার্ল্ড সেন্ট্রাল কিচেনের ৭ কর্মীকে হত্যা করে ইসরাইল। এ ঘটনায় বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড় ওঠে। সেই একই কায়দায় এবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা কর্মকর্তাকে হত্যা করা হলো। 

World