এবার হয়তো নিজের পরিবারের ওপর নজর দেবেন দ্রাবিড়

এবার হয়তো নিজের পরিবারের ওপর নজর দেবেন দ্রাবিড়

গত বছর ওডিআই বিশ্বকাপের পরপরেই শেষ হয়েছিল ভারতীয় সিনিয়র দলের হেড কোচ হিসেবে রাহুল দ্রাবিড়ের চুক্তি শেষ হয়েছিল কিন্তু ২০২৪ সালেই ছিল টি-২০ বিশ্বকাপ।ফলে বিসিসিআইয়ের তরফে রাহুল দ্রাবিড়কেই সেই সময়ে দায়িত্ব পালন করার জন্য অনুরোধ করা হয়। আগামী জুন মাসে টি-২০ বিশ্বকাপের পরপরেই সেই মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে। বিসিসিআইয়ের তরফে ইতিমধ্যেই আবেদনপত্র চাওয়া হয়েছে।হেড কোচ থাকতে গেলে পুনরায় আবেদন করতে হবে রাহুল দ্রাবিড়কে।তিনি আদৌও আবেদন করবেন কি করবেন না তা এখন ও জানা নেই। যা শোনা যাচ্ছে রাহুল দ্রাবিড় ও কোচ থাকবেন কিনা সেই বিষয়ে না জানালেও তিনি নাকি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন।

সোমবার গভীর রাতেই বিসিসিআই কোচের জন্য নতুন অ্যাড দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। রাহুল দ্রাবিড়ের মেয়াদ প্রায় শেষের পথে। যদি উনি হেড কোচ হিসেবে চালিয়ে যেতে চান তবে তাঁকে পুনরায় আবেদন করতে হবে, বলে জানিয়েছেন জয় শাহ। আমরা এই মুহূর্তে দীর্ঘমেয়াদি কোচের খোঁজ করছি। আমরা আপাতত তিন বছরের চুক্তিতে হেড কোচ নিয়োগ করতে চাইছি, বলে তিনি জানিয়েছেন। তবে আপাতত দ্রাবিড়ের আবেদন করার সম্ভাবনা ক্ষীণ বলেই মনে করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত দ্রাবিড়ের ছেলে ধীরে ধীরে বয়সভিত্তিক ক্রিকেটে নাম কামাচ্ছে। এই সময় তিনি ছেলেকে আরও একটু বেশি সময় দিতে চাইবেন এটাই স্বাভাবিক। কারণ রাহুল দ্রাবিড় নিশ্চিত ভাবেই চাইবেন তাঁর ছেলে অদূর ভবিষ্যতে তাঁর পদাঙ্ক অনুসরণ করে দলে ঢুকুক।

বিসিসিআইয়ের সেক্রেটারি জয় শাহ জানিয়েছেন তিন ফর্ম্যাটে তিন আলাদা কোচের কোন ইতিহাস ভারতের নেই। তবে এবার তা হবে কিনা সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে ক্রিকেট অ্যাডভাইজরি(উপদেষ্টা) কমিটি। এই কমিটিতে রয়েছেন যতীন পরাঞ্জপে,অশোক মালহোত্রা এবং সুলক্ষণা নায়েক। তিন ফর্ম্যাটে খেলেন এমন ক্রিকেটার ভারতের কাছে রয়েছে। রোহিত শর্মা,বিরাট কোহলি এবং ঋষভ পন্তের মতন ক্রিকেটাররা তিন ফর্ম্যাটেই খেলেন। জয় শাহ জানিয়েছেন বিদেশি কোচকেও নিয়োগ করতে পারে বিসিসিআই।সবটাই নির্ভর করছে ক্রিকেট অ্যাডভাইজারি কমিটির সুপারিশের উপরে। তবে ক্রিকেট মহলের অন্দরমহলের কথা অনুযায়ী, এনসিএ প্রধান ভিভিএস লক্ষ্মণ যদি উৎসাহী হন, তাহলে নিশ্চিত ভাবেই তাঁর দিকে পাল্লা ভারি হবে। দ্রাবিড়ের অনুপস্থিতিতে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন টুরে লক্ষ্মণ স্ট্যান্ডবাই হিসেবে গিয়েছেন কোচ হয়ে। তাই তাঁর মানিয়ে নিতেও অসুবিধা হবে না। তবে শেষ হাসি কে হাসবেন, তা সময়ই বলবে।

Sports