‘একবার ক্রিকেট থেকে অবসর নিলে, তোমরা আর আমায় দেখতে’

‘একবার ক্রিকেট থেকে অবসর নিলে, তোমরা আর আমায় দেখতে’

চলতি আইপিএলে দুরন্ত ছন্দে রয়েছেন বিরাট কোহলি। এখনও পর্যন্ত আইপিএলের সর্বোচ্চ রানের মালিক তিনি। এবারের অরেঞ্জ ক্যাপের দৌড়ে তিনি সবার ওপরে। বয়স বলছে ৩৫ কিন্তু পারফরমেন্স এবং ফিটনেস বলছে তিনি সবে ২৫। এবারের টি২০ বিশ্বকাপের আগেই বিরাট কোহলিকে নিয়ে অনেক জল্পনা হয়েছিল। গত ওডিআই বিশ্বকাপে ভারতকে ফাইনাল পর্যন্ত টেনে নিয়ে যাওয়া কোহলিকেই এবারের টি২০ বিশ্বকাপে দলে রাখা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গেছিল। স্লো বল নাকি তিনি অত ভালো খেলেন না, স্পিনের ক্ষেত্রে তাঁর অসুবিধা হয়, আরও কত কথা। কিন্তু নির্বাচকরা অবশ্য তাঁকে বাদ দিয়ে দল গড়ার ঝুঁকি নেননি। কারণ খুব ভালোভাবেই তাঁরা জানেন, ভারতীয় দল যখন বিদেশের মাটিতে মুখ থুবড়ে পড়ে, তখন আর কেউ নন,স্বয়ং বিরাট কোহলিই বাঁচায় দলকে। যদিও মনে করা হচ্ছে বিরাট নিজের খুব বেশিদিন এভাবে খেলা চালাবেন না। নির্বাচকদের মানসিকতা বুঝে নিজেই টি২০ বিশ্বকাপের পর সরে দাঁড়াতে পারেন। এবার এই নিয়েই বড় মন্তব্য করলেন বিরাট।

বিরাটের এই মূহূর্তে যা পারফরমেন্স তাতে কোনওভাবেই দল থেকে বাদ যাওয়ার মতো নয়। স্বয়ং সুনীল গাভাসকরের সঙ্গেও কদিন আগে ঠোকাঠুকি লেগেই গেছিল প্রায় বিরাটের। স্ট্রাইক রেট ইস্যুতে যেভাবে তাঁর পিছনে পড়েছেন কয়েকজন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ, তাতে বেজায় বিরক্ত তিনি। এরই মধ্যে কোহলি নিজের অবসর প্রসঙ্গে দিলেন বড় বার্তা। আরসিবিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ওডিআই ফরম্যাটের সর্বোচ্চ শতরানের মালিক বলছেন, একবার ক্রিকেট থেকে অবসর নিলে, কিছু সময়ের জন্য নিজেকে পুরোপুরি ক্রিকেট থেকে সরিয়ে রাখবেন তিনি।

আরসিবির দেওয়ার এক ভিডিয়োয় বিরাট কোহলি বলছেন, ‘ আমার কাছে বিষয়টা খুব সহজ, প্রত্যেক ক্রীড়াবিদেরই কেরিয়ারের একটা শেষ আছে। আমিও এখন পিছনের দিকে যাচ্ছি। আমি চাইনা আমার কেরিয়ার শেষ করার পর আমি ভাবব যে এটা করলে কি হত, কারণ আমি অনন্তকাল খেলা চালিয়ে যেতে পারব না। তাই সহজ কথায় বলতে গেলে কোনও আক্ষেপ আমি রেখে যেতে চাই না। মাঠ থেকে যা যা পাওয়ার, পেয়ে ফেলতে চাই। আমি যতদিন খেলব আমি আমার সব কিছু দেব, কিন্তু একবার আমি ক্রিকেট থেকে সরে দাঁড়ালে, তোমরা আমায় চাইলেও বেশ খানিকটা সময় দেখতে পাবে না’।

অনেক ক্রিকেট বিশেষজ্ঞের মতে, সিমিত ওভারের ক্রিকেট থেকে অবসরের পর বিরাট হয়ত টেস্ট ক্রিকেট চালিয়ে যাবেন। কিন্তু বাস্তবিক ক্ষেত্রে সেই সম্ভাবনা কম। কারণ বিরাট যে ধরণের আগ্রাসী মনোভাব রাখেন, তাতে তাঁর পক্ষে ওডিআই, টি২০ খেলার যে লড়াই বা মজা, তার থেকে দূরে নিজেকে সরিয়ে রেখে টেস্ট খেলা হয়ত মানসিক দিক থেকে খুব বেশিদিন সম্ভব হবে না। কারণ শরীর চাইলেও মন চাইবে না। সেক্ষেত্রে আপাদমস্তক ফ্যামিলি ম্যান কোহলি পরিবারের সঙ্গেই সময় দেওয়াকে বেছে নিতে পারেন।

Sports