"বাংলার দায়িত্ব নেওয়ার জন্য জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তাঁর দূত হিসেবে পাঠিয়েছেন"


স্বয়ং ভগবান বাংলাকে রক্ষা করার জন্য, বাংলার দায়িত্ব নেওয়ার জন্য জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তাঁর দূত হিসেবে পাঠিয়েছেন। রবিবার বাঁকুড়ার সারেঙ্গায় তৃণমূলের 'উন্নয়ন যাত্রা' উপলক্ষ্যে এক সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এমনই দাবি করেন রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা। তিনি আরো বলেন, "বাংলা জুড়েই একটা সময় অশান্তির পরিবেশ তৈরী হয়েছিল। সেই সময়ে অনেকে হারিয়েছেন তার বাবা, ছেলে, স্বামী, ভাই বা দাদাকে। 'পাপে পরিপূর্ণ বাংলা'কে রক্ষা করতে দরকার ছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। পায়ে হাওয়াই চটি আর মাথার উপরে টালির ছাদ নিয়ে তিনি বাংলার প্রতিটি বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছেন উন্নয়নের ধারা ও উন্নয়নের জোয়ার। এখন আমরা আর কোন অংশেই পিছিয়ে নেই।"তিনি আরও বলেন "ক্ষমতায় এসেই প্রথমে জঙ্গল মহলের মানুষের সার্ব্বিক উন্নয়ন করার কথা ঘোষণা করেছেন মমতা। এখন আর এখানকার মায়েদের সকাল হলেই ভাতের জন্য ভাবতে হয়না। প্রতিটি পরিবার এখন দু'টাকা কেজি করে চাল পাচ্ছেন। যা অনন্য নজির" বলেও দাবি করেন মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা।

লোকসভা ভোটের আগে জেলা জুড়ে 'উন্নয়ন যাত্রা' শুরু করেছে শাসক দল তৃণমূল। যা প্রতিটি ব্লক এলাকায় পৌঁছে যাবে। নেতৃত্বে থাকবেন দলের নির্বাচিত সর্বস্তরের জনপ্রতিনিধি থেকে মন্ত্রী, বিধায়করা। এদিন জঙ্গল মহলে 'উন্নয়ন যাত্রা'র দ্বিতীয় দিনে সারেঙ্গা এলাকায় উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা ছাড়াও, জেলা সভাধিপতি মৃত্যুঞ্জয় মুর্ম্মু, তৃণমূল জেলা সভাপতি অরূপ খাঁ, বিধায়ক জ্যোৎস্না মাণ্ডি, বাঁকুড়া পৌরসভার চেয়ারম্যান, তৃণমূল নেতা মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত, দলের ব্লক সভাপতি ধীরেন্দ্রনাথ ঘোষ সহ অন্যান্য নেতারা ।
Powered by Blogger.