‌সাইবার গেমে বলি যুবক



মৃন্ময় নস্করঃ আবার সাইবার গেমের হাতছানি। আর সেই গেম খেলতে গিয়েই আত্মঘাতী হল এক কলেজ ছাত্র। গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ওই ছাত্রের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়েছে। আর সেই ঘটনাকে ঘিরে রবিবার সকালে এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। মৃতের নাম আশিষ মণ্ডল (২৩)। আশিষ এম এ ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিষ্ণুপুরের জয়রামপুর এলাকায়। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।


তার পরিবারের অভিযোগ,মোবাইলে বা ল্যাপটপে কোন আজানা গেম খেলতে গিয়েই আশিষের এই পরিনতি হয়েছে। তার বিছানার পাশ থেকে ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার হয়েছে। পুলিশ সেগুলিকে নিয়ে গিয়ে খোলার চেষ্টা করছে। স্থানীয় মানুষ ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মামার বাড়ি থেকে লেখাপড়া করত আশিষ। অন্য দিনের মতো শনিবার রাতেও তার মামার পরিবারের লোকজনের সঙ্গে রাতের খাবার খায় ওই ছাত্র। আশিষ খুবই ভাল ছেলে ছিল। শান্ত স্বভাবেরও ছিল। এলাকায় বন্ধু বান্ধবদের সঙ্গে ঘোরাফেরা করা বা কারুর সঙ্গে মেলমেশাও তেমন করত না। সারাক্ষনই নিজের পড়াশোনা ও টিউশানি নিয়ে থাকত। তার মোবাইল ফোন ও ল্যাপটপ দুটোই ছিল। তাতেই মগ্ন থাকত সে। শনিবার রাতে শুতে যাওয়ার পর এদিন সকালে অনেক ডাকাডাকি করার পরও তারা সাড়া পান নি মামার বাড়ির পরিবারের লোকজন। তারপরে দরজা ভেঙে আশিষের ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান তাঁরা। পুলিশ দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। তার মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তার বিছানার পাশেই মিলেছে ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন। তার পরিবারের সন্দেহ, মোবাইল বা ল্যাপটপে কোনও অজানা গেম খেলেই আত্মঘাতী হয়েছে তাদের একমাত্র ছেলে। পুলিশ জানায়, মোবাইল ফোনটি ও ল্যাপটপটি খোলার চেষ্টা করা হচ্ছে। ওই দুটি জিনিস থেকেই এই আত্মহত্যা বলে প্রাথমিক অনুমান।
Powered by Blogger.