৫২বছর পর রায় ঘোষনা :ইসিএল বৃদ্ধ ছাটাই শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণ


জয়ন্ত সাহা, আসানসোল,৭ডিসেম্বর :সেদিন তরতাজা যুবক, আজ বার্ধ্যকের দোর গোড়ায়। কেটে গিয়েছে ৫২ টা বছর। তবুও মনের জোর কমেনি। আদালতের ক্ষতিপুরনের রায় শোনার পর উত্তরপ্রদেশ থেকে কোলিয়ারির এরিয়া অফিসে সটান ছাঁটাই হওয়া খনি শ্রমিকরা। ক্ষতিপুরন পাওয়া নিয়ে এখনও অন্ধকারে তাঁরা।উত্তরপ্রদেশ থেকে জনা দশেক বৃদ্ধ ইসিএলের নিউ সাতগ্রাম এরিয়া অফিসে হাজির হয়েছেন। চোখে মুখে বার্ধ্যকের বলিরেখা ফুটে উঠেছে। তার সঙ্গে চরম বঞ্চনার ছাপ। সালটা ১৯৭৪। নিয়োগে গরমিল থাকার অভিযোগে ২১৯ জন খনি শ্রমিককে ছাঁটাই করে। কাজ হারিয়ে মনের মধ্যে একরাশ বেকারত্বের যন্ত্রনা আর ক্ষোভ নিয়ে কর্মচ্যুত হয় তারা। কিন্তু হাল ছাড়ে নি। শরনাপন্ন হয় হাইকোর্টের। হাইকোর্টে মামলার রায় শ্রমিকদের পক্ষে যায়।  ওই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ইসএল সুপ্রিম কোর্টের দারস্ত হয়। কিন্তু সেখানের বিচারক বিষয়টি নিম্ন আদালতে নিষ্পত্তি করার পরামর্শ দেয়। সেই পুনরায় ট্রাইবুনাল কোর্টে মামলাটির বিচার প্রক্রিয়া শুরু হয়। তারপর কেটে গেছে ৫২ টা বছর। দামোদর-অজয় দিয়ে বয়ে গেছে বহু জল। সেদিনের তরতাজা যুবকরা আজ বার্ধ্যকের কোঠায় পৌঁছে গেছে। চাকরীর বয়স নেই। অনেকে পরলোক গমন করেছে। মাস কয়েক আগে ওই মামলায় বিচারক ছাঁটাই শ্রমিকদের ৫০ হাজার টাকা করে ক্ষতিপুরনের নির্দেশ দেন ।
Powered by Blogger.