তৃণমূলের 'ডিজিটাল চ্যালেঞ্জ'‌ মাতলেন কুইজ মাষ্টার-সাংসদ


বারুইপুরে তৃণমূলের 'ডিজিটাল চ্যালেঞ্জ'‌ অনুষ্ঠান মাতিয়ে দিলেন কুইজ মাষ্টার ও সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়ন। শনিবার বারুইপুর রবীন্দ্রভবনে এই অনুষ্ঠান হয়। তৃণমূলের তরফে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। আর তাতেই কুইজ মাষ্টার হিসাবে মূল পর্বের কুইজ পরিচালনা করেন ডেরেক ও ব্রায়ন। জেলার সাগর থেকে সুন্দরবন সব জায়গা থেকেই এই কুইজে কলেজ ও স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা অংশ নেন। প্রায় ২৫০ টি দল প্রথম পর্বের অনুষ্ঠানে অংশ নেয়। তার থেকে ৬ টি দলকে বেছে নেওয়া হয় মূল পর্বে। ক্যানিংয়ের বঙ্কিম সর্দার কলেজ, ডায়মন্ডহাবারের ফকির চাঁদ কলেজ, সুভাষগ্রামের সুরেন্দ্রনাথ ল কলেজ, বারুইপুরের রানী রাসমনি স্কুল, কৃষ্ণমোহনপুরের হাই স্কুল এবং উস্থির স্কুল মূলপর্বের প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পায়। সেখান থেকেই সুভাষগ্রামের সুরেন্দ্রনাথ ল কলেজের দুই আইনি ছাত্র ছাত্রী দেবাঞ্জন ও মধুমিতা প্রথম স্থান পায়। তাদেরকে দিল্লির সাংসদ ভবনে নিয়ে যাওয়া হবে। তবে তাদের সঙ্গে সমানে লড়াই করে ডায়মন্ডহারবার ফকির চাঁদ কলেজ ও ক্যানিংয়ের বঙ্কিম সর্দার কলেজের ছাত্ররা। ফকির চাঁদ কলেজের অংশগ্রহণকারিরা দ্বিতীয় ও বঙ্কিম সর্দার কলেজের অংশগ্রহানকারিরা তৃতীয় স্থান পায়। তাঁদেরকেও পুরষ্কার হিসাবে বিধানসভায় নিয়ে যাওয়া হবে। বিধায়কদের সঙ্গে মধ্যাহ্ন ভোজও করানো হবে।

এদিন অনুষ্ঠানে ৫০ টি পুরষ্কার দর্শকদের জন্য আর ১২ টি পুরষ্কার মূল পর্বে অংশগ্রহণকারিদের জন্য রাখা ছিল। এদিন ডিজিটাল চ্যালেঞ্জ অনুষ্ঠানের বিশেষত্ব ছিল মহিলা প্রতিযোগীদের মূল পর্বে অংশগ্রহণ। শুক্রবারই উত্তর ২৪ পরগনার বারাসাতে এই ডিজিটাল চ্যালেঞ্জ অনুষ্ঠান হয়। সেখানে মূল পর্বে কোন মহিলা অংশগ্রহণকারি ছিলেন না। কিন্তু এদিন বারুইপুরে মূল পর্বে ১২ জনের মধ্যে ৫ জন মহিলা প্রতিযোগীকে অংশ নিতে দেখা যায়। কুইজ পরিচালনা করতে গিয়ে বার বার সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়ন মহিলাদের এই অংশগ্রহণে কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, এখানের ডিজিটাল কুইজে ছাত্রদের সঙ্গে ছাত্রীদের অংশ গ্রহণ দেখে ভাল লাগছে। সাইবার জগৎ নিয়ে প্রশ্নের পাশাপাশি সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প ও সাধারন ঞ্জান নিয়েও তিনি বিভিন্ন প্রশ্ন করেন। ভবিষ্যতে এই অনুষ্ঠান অন্য মহকুমা শহরেরও করা হবে বলে তিনি জানান। এদিন এই অনুষ্ঠানে বিধায়ক নির্মল মণ্ডল, বিশ্বনাথ দাস, সওকাত মোল্লা,বারুইপুর ও রাজপুর সোনারপুর পুরসভার চেয়ারম্যান শক্তি রায়চৌধুরি ও পল্লব দাস, জেলা পরিষদের সভাধিপতি শামিমা শেখ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
Powered by Blogger.