শোভনের ইস্তফা জমা দেওয়া নিয়ে সংশয়! আশার আলো তৃণমূল মহলে


তিনটে দফতরের মন্ত্রীত্ব গিয়েছে৷ চলছে এবার টানাহ্যাঁচড়া  তাঁর মেয়র পদটা নিয়ে৷ বুধবারই দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে ইস্তফা দিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন৷ কিন্তু দেখা গেল এদিন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের পদত্যাগপত্র জমা পড়েনি৷ কবে পদত্যাগপত্র জমা দেবেন তা নিয়ে রহস্য জিইয়ে রেখেছেন তিনি৷ এদিন সন্ধ্যায় এক বেসরকারি টিভি চ্যানেলে শোভন চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, ঠিক সময়ে তাঁর পদত্যাগপত্র জমা পড়ে যাবে৷ খবর পাওয়া যাচ্ছে, শোভনকে যাতে মেয়র পদ না হারাতে হয় তার জন্য দলের অনেকেই জোর চেষ্টা চালাচ্ছেন৷ এমনকি খোদ মমতার পরিবারের  সদস্যরা শোভনের জন্য গলা ফাটাচ্ছেন৷ তৃণমূলের কেউ কেউ মনে করছেন, পদ রয়ে যাওয়ার অনেকটাই সম্ভবনা রয়েছে শোভনের৷

(আরও পড়ুনঃ মেয়র ইস্তফা,নয়া সিলেকশন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর যুক্তি)

এদিন শোভন চট্টোপাধ্যায় বলেন, 'মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমাকে ইস্তফা দিতে বলেছেন৷ আমি সবসময় ওনার কথা শুনে চলেছি৷ ঠিক সময়ে আমার পদত্যাগপত্র জমা পড়ে যাবে৷ একটু অপেক্ষা করুন৷' মমতার সঙ্গে শোভনের সম্পর্ক দীর্ঘ বছরের৷ তৃণমূল কংগ্রেস সূত্রে খবর, মমতার পরিবারের অনেক সদস্যই শোভনকে ব্যক্তিগতভাবে পছন্দ করেন৷ তাঁরা চান না তাঁদের প্রিয় কানন সব পদ খোয়াক৷ এব্যাপারে তাঁরা মমতাকে বোঝানোর চেষ্টা করছেন বলে জানা গিয়েছে৷ এমনকি দলের যাঁরা শোভনের শুভানুধ্যায়ী তাঁরাও দলনেত্রীকে বোঝানোর চেষ্টা করছেন৷
শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ট এক তৃণমূল নেতার কথায়, 'শোভনদা অনেকের উপকার করেছেন৷ সবাই তো আর বেইমান নন৷ যাঁরা মনে রেখেছেন তাঁরা এখন নিজেদের মতো করে চেষ্টা করছেন মেয়র পদটা বাঁচাতে৷ এখন সবটাই দিদির হাতে'৷

(আরও পড়ুনঃ মেয়র পদে ববি) 

শোভন অবশ্য ক্ষমতার কোনও তোয়াক্কাই করছেন না৷ এদিন তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁর কাছে বন্ধু বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্মানটাই আগে৷ তারপর কী হবে সেটা একমাত্র মমতাই জানে!
Powered by Blogger.