'যাত্রার রথ আটকাতে গেলে পিষে মারা হবে বিরোধীদের'

[pullquote align="normal"] [/pullquote]

গণতন্ত্র বাঁচাও যাত্রার রথ আটকাতে গেলে পিষে মারা হবে বিরোধীদের। মালদা এসে রথ যাত্রার প্রস্তুতি বৈঠকের আগে এমনই মন্তব্য করলেন বিজেপির রাজ্য মহিলা মোর্চার সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। পাশাপাশি তিনি জানিয়ে দেন সাধারণ মানুষের সমর্থন নিয়েই এই রথযাত্রা চলবে রাজ্যের তিনপ্রান্ত থেকে।
শনিবার মালদহে এসে ১১ টি জেলার এদেরকে নিয়ে রথ যাত্রার প্রস্তুতি বৈঠক করেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী তথা রাজ্য বিজেপি মহিলা মোর্চা সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন আগামী ৭ ডিসেম্বর থেকে কুচবিহার তারাপীঠ এবং গঙ্গাসাগর থেকে তিনটি রথ বেরোবে। প্রতিটি রথেই থাকবেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। মুখ্যমন্ত্রীর থাকবেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল।


লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন এ রাজ্যে গণতন্ত্র বিপন্ন। সাধারণ মানুষ থেকে নিরীহ মহিলারা অত্যাচারের শিকার হচ্ছেন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী একজন মহিলা হওয়া সত্বেও এ রাজ্যে নারী নির্যাতনের হার সবচেয়ে বেশি বলে দাবি করেন লকেট চট্টোপাধ্যায় তিনি বলেন নারী নির্যাতন বন্ধ করতে এবং এ রাজ্যে গণতন্ত্র ফেরাতে যাত্রা করছে বিজেপি। সেই রথযাত্রা তে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবেন মহিলারাও। ইতিমধ্যেই এই রথযাত্রা রোখার ইঙ্গিত দিয়েছেন রাজ্য তৃণমূল নেতৃত্ব। সেই প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন রথযাত্রা হবে সাধারণ মানুষের সমর্থনে। সাধারণ মানুষের রথযাত্রা অংশগ্রহণ করবেন। সেই যা রথযাত্রা যদি কেউ ঢোকার চেষ্টা করে তবে সেই রথের চাকার তলাতেই পিষে মারা হবে তাদের। বিজেপির রাজ্য মহিলা মোর্চার সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়ের এই বক্তব্য নিয়ে তীব্র চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।
জেলা মহিলা তৃণমূল সভানেত্রী চৈতালি ঘোষ সরকার বলেন বিজেপির একমাত্র লক্ষ্য পশ্চিমবঙ্গে অশান্তি তৈরি করা। তবে সাধারণ মানুষ রক্তপাত চান না অশান্তি ও চান না। তাই তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা নয় বিজেপির হিংসার রথযাত্রা রুখে দেবে সাধারণ মানুষই। পশ্চিমবঙ্গে কোনোভাবেই হিংসার রাজনীতি প্রতিষ্ঠা করতে দেওয়া হবে না।
[pullquote align="normal"] [/pullquote]
Powered by Blogger.