শ্বশুরবাড়ির হাতে বলি নাবালিকা গৃহবধূ ?

[pullquote align="normal"] [/pullquote]



চাঁদনী ,পূর্ব মেদিনীপুর :গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় চাঞ্চল্য।ঘটনাটি ঘটেছে মেদিনীপুরের হলদিয়ার ভবানীপুর থানার দেভোগ এলাকায়।মৃতার নাম আনু বেগম (১৬)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, তমলুকের শিমুলিয়ার বাসিন্দা নাবালিকা আনু বছর ৫ আগে প্রেম করে বাড়ি থেকে পালিয়ে এসে বিয়ে করে দেভোগের বাসিন্দা সেখ সাদ্দামের সঙ্গে। বিয়ের পর তাঁর একটি পুত্র সন্তানও জন্ম হয়। কিন্তু সাদ্দামের পরিবার দীর্ঘদিন ধরেই টাকার দাবীতে মেয়েটির ওপরে অত্যাচার চালাত বলে অভিযোগ।

মৃতের মা নাজমা বিবির অভিযোগ, গত কয়েকদিন ধরেই মেয়েটিকে তাঁর বাপের বাড়ি থেকে ১ লক্ষ টাকা আনার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু সেই টাকা দিতে অপারগ হওয়ায় মেয়েটির ওপরে অত্যাচারের মাত্রা বেড়ে যায়।

এরপর সোমবার রাতে এক আত্মীয় মারফৎ তাঁরা খবর পান তাঁদের মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। তড়িঘড়ি ছুটে আসেন তাঁরা। নাজমা বিবির অভিযোগ, তাঁর মেয়েকে মেরে ঝুলিয়ে দিয়েছে শ্বশুরবাড়ির লোকেরা।

পরে বিকেল ৫টা নাগাদ স্থানীয় এক চিকিৎসক ডেকে তাঁকে পরীক্ষাও করানো হয়। অবশেষে মৃত নিশ্চিত জেনে সন্ধ্যের পর দেহটিকে হলদিয়া হাসপাতালে রেখে আসে তাঁরা। হলদিয়া মহকুমা হাসপাতালে দেহটির ময়না তদন্ত করা হয়।

এই ঘটনায় মৃতের স্বামী সেখ সাদ্দাম, শ্বাশুড়ি, দেওর ও দুই ননদের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ এনেছেন নাজমা বিবি। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে কঠোর শাস্তির দাবীও জানিয়েছেন তাঁরা।
[pullquote align="normal"] [/pullquote]
Powered by Blogger.