খেলতে মানা মায়ের! আত্মঘাতী ছেলে



ভর দুপুরে বাইরে খেলতে যেতে মানা করেছিল মা। না শোনায় ঘরের মধ্যে ছেলেকে বন্ধ করে বাইরে থেকে ছিটকিনি লাগিয়ে দেন। ঘন্টাখানেক পড়ে এসে ছেলের কোন সাড়াশব্দ না মেলায় দরজা খুলে যান। দরজা খুলতেই এগারো বছরের ছেলেকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলতে দেখে অজ্ঞান হয়ে যান মা। বৃহস্পতিবার রাতে এই ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়ায় শিলিগুড়ির সুর্যসেন কলোনির ব্লক বি এলাকায়। শুক্রবার সকাল থেকে পুরো এলাকায় শোকের ছায়া। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত কিশোরের নাম দীপঙ্কর মন্ডল (১১)। অভিমানে এমনটা করে বসবে ছেলে স্বপ্নেও ভাবতে পারেন মা তারামণি মন্ডল। একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে তিনিও পাথর হয়ে গিয়েছেন। বাবা দিলীপ মন্ডল কেঁদেই চলেছেন। দীপঙ্করের দাদু সোমনাথ মন্ডল বলেন, “স্কুল থেকে ফিরেই খেলতে যেতে চায়। কিন্তু বৌমা ওই সময় খেলতে যেতে মানা করে। এর আগেও অনেকবার দুপুরে খেলতে যেতে চাইতো দেখে বৌমা দীপঙ্করকে ঘরে বন্ধ করে রেখেছিল। এদিন যে এরকম হয়ে যাবে ভাবতেও পারিনি।” এদিন বিকেলে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে ময়নাতদন্তের পর দীপঙ্করের দেহ তাঁর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়।
Powered by Blogger.