‘হানজা’ সুন্দরী: বাঁচে ১০০ বছরেরও বেশি

[pullquote align="normal"] [/pullquote]
‘হানজা’ সুন্দরী, বাঁচে ১০০ বছরেরও বেশি!

বিশ্বের নানা প্রান্তে বাস করে বিভিন্ন উপজাতি সম্প্রদায়। তারা নিজেদের রীতিনীতি বা বৈশিষ্ট্যের কারণে আলাদাভাবে পরিচিতিও পেয়ে থাকে। এমনই একটি সম্প্রদায় হলো হানজা। এই সম্প্রদায়ের নারীদের বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দরী হিসেবে অভিহিত করে থাকেন অনেকেই। শুধু সৌন্দর্যের কারণেই নয়, এই নারীদের গড় আয়ুও সাধারণ মানুষের তুলনায় অনেক বেশি। এরা ১৬০ বছরেরও বেশিদিন বাঁচে বলে দাবি করা হয়। আরেকটি বিস্ময়কর তথ্য হলো, এই সুন্দরী নারীরা ৬৫ বছর বয়স পর্যন্ত সন্তান জন্মদানে সক্ষম।
হানজাই পৃথিবীর একমাত্র সম্প্রদায় যাদের গড় আয়ু ১০০ বছরেরও বেশি। গ্রীক বীর আলেকজান্ডার দ্য গ্রেট এই সম্প্রদায়ের পূর্বপুরুষ বলে দাবি করে তারা। আফগানিস্তান ও চীনের সীমান্ত সংলগ্ন পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় হানজা উপত্যকায় বাস করে এরা।
হানজা সম্প্রদায়ের সৌন্দর্য এবং আয়ু কেন বেশি থাকার কারণ জানার জন্য বেশ কয়েকটি গবেষণা পরিচালিত হয়েছে। গবেষকরা জানিয়েছেন, খাদ্যাভ্যাস এবং জীবনযাপন পদ্ধতিই মূলত এদের দীর্ঘায়ু করে। হানজারা দিনে দুই বেলা খায় এবং প্রচুর কায়িক পরিশ্রম করে। সম্প্রদায়ের ৯৯ শতাংশ মানুষই নিরামিষাশী। এদের খাবারের অধিকাংশই পনির, দুধ, বাদাম থেকে তৈরি হয়।
হানজা নারীদের সৌন্দর্যের একটি গোপন রহস্য হলো তারা পানির চেয়ে মদ পান করে বেশি। ওই মদটি বিশেষভাবে তৈরি করা হয়। তাছাড়া এরা নিয়মিত যোগব্যায়াম করে থাকে। এটাও এদের সৌন্দর্য এবং দীর্ঘায়ু হওয়ার আরেকটি কারণ। দিনের কাজ শুরু করার আগে সকালে তারা অন্তত ৩ ঘণ্টা যোগব্যায়াম করে থাকে। হানজারা নিয়মিত শ্বাসক্রিয়ার ব্যায়ামও করে থাকে। এটা শরীরকে নীরোগ রাখতে সাহায্য করে বলে জানা যায়।
শুধু দীর্ঘায়ু ও সৌন্দর্যই নয়, হানজা সম্প্রদায় শিক্ষাক্ষেত্রেও অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে। এই সম্প্রদায়ের শিক্ষার হার ৯০ শতাংশের ওপরে বলে জানা যায়।
[pullquote align="normal"] [/pullquote]
Powered by Blogger.