রেলের বৈদ্যুতিক পরিকল্পনার স্বপ্ন প্রধানমন্ত্রীর

[pullquote align="normal"] [/pullquote]

সারা দেশ জুড়ে জালের মত ছড়িয়ে রয়েছে রেল ব্যবস্থা ৷ আর সেই সমস্ত রেললাইনগুলির বৈদ্যুতীকরণ আবশ্যিক এমনটাই জানান রেলওয়ে বোর্ডের সদস্য ঘনশ্যাম সিং৷ তিনি জানাচ্ছেন বৈদ্যুতিক শক্তি অনেক বেশি সস্তা৷  বৈদ্যুতীকরণের এই পরিকল্পনার জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে ৩৫,০০০ কোটি টাকা ৷ স্বদেশজাত উৎসকে ব্যবহার করে দেশের সমস্ত রেল ব্যবস্থার বৈদ্যুতীকরণ করা হোক ৷ এমনই স্বপ্ন দেখেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ৷
তিনি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘রামেশ্বরম-মাদুরাই সেকশনকে বৈদুতীকরণের পরিকল্পনা করছি৷ যেখানে ১৬১ কিমি বৈদ্যুতীকরণের জন্য খরচ পড়বে ১৫৮ কোটি টাকা ৷ আরও একটি বৈদ্যুতিন কান্টিলিভার ব্রিজ তৈরির কথা ভাবা হচ্ছে৷ কিন্তু, সেটি তৈরির জন্য যথেষ্ট সময়ের প্রয়োজন৷ সেজন্যই রেলমন্ত্রক প্রথমে পুরনো ব্রিজটির বৈদ্যুতীকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ বৈদ্যুতীকরণের এই নয়া সিদ্ধান্ত নিয়ে যথেষ্ট আশাবাদী রেল কর্তৃপক্ষ৷

অন্যদিকে, যাত্রা ও যাত্রীদের কথা মাথায় রেখেই রেলমন্ত্রক নিতে চলেছে একাধিক উদ্যোগ ৷ যেখানে রেল কামরার আধুনিকীকরণ থেকে শুরু করে টিকিট বুকিং সমস্তটাই রয়েছে ৷ যাত্রাপথকে আরামদায়ক বানাতে পরিকল্পনায় ফাঁক রাখেনি রেলকর্তারা ৷ দিনের পর দিন ক্রমান্বয়ে বেড়েছে প্রযুক্তির ব্যবহার৷ আর এই প্রযুক্তির দৌলতেই যাত্রীরা একটি মাত্র ক্লিকেই রেলে যাত্রাকালীন হাতে পেয়েছেন নিজের পছন্দের খাবার ৷ তাই সবমিলিয়ে বলা যায়, রেল দফতরের নয়া পরিকল্পনার সঠিক বাস্তবায়ন অনেকাংশে বাড়াবে রেলের বার্ষিক লভ্যাংশকে ৷
[pullquote align="normal"] [/pullquote]
Powered by Blogger.