হিন্দু ভাইকে রক্ত দিয়ে প্রান বাঁচাল মুসলিম

[pullquote align="normal"] [/pullquote]


মৃন্ময় নস্কর, দক্ষিন ২৪ পরগণা: দূরারোগ্য ক্যান্সার আক্রান্ত হিন্দু ভাই কে রক্ত দিয়ে 'নায়ক' ভাঙড়ের ফারুক

রাজনৈতিক হানাহানি, গোষ্ঠী কাজিয়ায় জীর্ণ ভাঙড় বরাবরই সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছে সেই রিতী ভেঙে দূরারোগ্য ক্যান্সার আক্রান্ত হিন্দু ভাই এর জীবন বাঁচাতে হাসপাতালে ছুটে গিয়ে রক্ত দিয়ে সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছেন ভাঙড়ের ভুমিপুত্র আব্দুলা হিল ফারুক।রাতারাতি নায়ক হয়ে যাওয়া ফারুক এর বক্তব্য অনুযায়ী
'মোরা একই বৃন্তে দুটি কুসুম হিন্দু-মুসলমান।
মুসলিম তার নয়ন-মণি, হিন্দু তাহার প্রাণ।'
"কবি তার কবিত্তের মধ্য দিয়ে হিন্দু এবং মুসলমানের মধ্যে মেলবন্ধন ঘটানোর যে মরিয়া চেষ্টা করেছিলেন আমি ঠিক অনুরুপ ভাবে দূরারোগ্য হিন্দু ভাই এর জীবন বাঁচাতে হাসপাতালে ছুটে গিয়ে রক্ত দিয়ে মানবতার পরিচয় দিয়েছি।" তিনি আরো বলেন, "আমার কাছে ধর্ম নয় মানুষত্বটাই বড়।"

উল্লেখ্য, সোশ্যাল মিডিয়ায় এক হিন্দু ভাই এর জন্য রক্ত দান করার জন্য আবেদন করেন এক কলেজ ছাত্রী।সেই পোস্ট দেখে হিন্দু ভাইয়ের প্রাণ বাঁচাতে নিজে হাসপাতালে ছুটে গিয়ে রক্ত দেন ভাঙড়ের কৃষ্নমাটি গ্রামের আব্দুলা হিল ফারুক ।বছর ছাব্বিশ এর এই যুবকের এমন মানসিকতায় প্রশংসা পেয়েছে সমাজের বিভিন্নস্তর থেকে।

কলকাতা ভবানীপুরের বাসিন্দা পেশায় ব্যবসায়ী বাসুদেব মুখার্জি ( ৫০ ) দীর্ঘ দেড় বছর দুরারোগ্য ক্যানসার রোগে আক্রান্ত। কঠিন রোগের সঙ্গে নিউ টাউন টাটা মেডিক্যাল সেন্টারে ১৯/৬৪৪৮ নম্বর বেডে শুয়ে টানা দেড় মাস ধরে জীবন সংকটের কবলে পড়েন বাসুদেব। তাঁর রক্তের প্রয়োজনীয়তা মেটাতে এগিয়ে আসেন ভাঙড়ের ওই বছর ছাব্বিশের যুবক। বৃহস্পতিবার নিউ টাউনের ওই বেসরকারি হাসপাতালে গিয়ে রক্ত দিয়ে আসেন তিনি।এ দিকে রক্তদানের শেষে যেমন গর্বিত ফারুক বলছেন, মানুষের পাশে থাকাটা একটা বড় ধর্ম।তেমনই বাসুদেব বাবুর মেয়ে রেশমি মুখার্জিও রক্তদাতা ফারুককে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাতে ভোলেননি। কালীঘাটের ওমেস খ্রিস্টান কলেজের অধ্যক্ষা অজন্তা পাল তাঁর এক বন্ধুর পরিবারের সদস্যের প্রাণ বাঁচাতে যেকোনও গ্ৰুপের রক্ত দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন। সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে ওই কলেজের এক মুসলিম ছাত্রী সোশ্যাল মিডিয়ায় আর্জি জানান। ফেসবুকের সেই পোস্ট দেখেই ভাঙড়ের তরুণ আব্দুল লাহিল ফারুক রক্ত দিতে ছুটে যান।ফারুক এর এই মহৎ কাজের খবর এলাকায় চতুর দিকে ছড়াতে ভাঙড়ের আনাচে কানাচে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক পোষ্ট করে তার প্রতি প্রশংসা ভরিয়ে দিয়েছে।
[pullquote align="normal"] [/pullquote]
Powered by Blogger.